ধ্যানের মাধ্যমে কোন কিছু সাধন করা কি সম্ভব ?

 ধ্যান একটি সুপ্রাচীন শব্দ। কেউ যদি এই বিষয়ে জ্ঞান অর্জন না করে, তাহলে তার কাছে এটি ফালতু কাজ বলে মনে হতে পারে।

ধ্যানের মাধ্যমে কোন কিছু সাধন করা কি সম্ভব ?


প্রশ্ন হল এই ধ্যান কি কি সাধন করতে পারে ? উত্তর হল , ধ্যান কি সাধন করতে পারে না ? মানুষ জীবনে যা চায় সব কিছুই এই ধ্যানের মাধ্যমে অর্জন করা সম্ভব। 

কারণ সবকিছুর মালিক হচ্ছেন মহান আল্লাহ তা'আলা। আর ধ্যান হচ্ছে এমন একটি মাধ্যম যা সরাসরি আল্লাহ তাআলার সাথে সম্পর্ক তৈরি করতে পারে। তাহলে আল্লাহ নিজেই যদি আপনার হয়ে যান তাইলে ধন সম্পদ ঐশ্বর্যশালী হওয়া বা পারলৌকিক উন্নতি করা, সবকিছুই সম্ভব এই ধ্যানের মাধ্যমে।

আরবীতে ধ্যান শব্দটিকে বলে মুরাকাবা। আমরা চর্মচক্ষু দিয়ে যে জগৎটাকে দেখি এটা হচ্ছে বাহ্যিক জগত (Physical World)। 

আর চক্ষু বন্ধ করলে আমরা কিন্তু আরেকটা জগতে প্রবেশ করি যে জগতের কোন সীমা পরিসীমা নেই । সেটাকে বলে আধ্যাত্বিক জগৎ ( Spiritual World ).

কোন ব্যাক্তি যদি এই আধ্যাত্বিক জগতে প্রবেশ করার জন্য হাতেখড়ি নিতে চায় তাকে অবশ্যই একজন অভিজ্ঞ গুরুজীর মাধ্যমে চর্চা করে বিষয়টি রপ্ত করতে হবে। আমি এখানে কেবল একটি প্রাথমিক ধারনা দিচ্ছি। এই প্রাথমিক ধারনার উপর ভিত্তি করে মেডিটেশন করা যাবে না। এতে হিতে বিপরীত হতে পারে।

চোখ বন্ধ করে আমরা প্রথম যে স্তরে প্রবেশ করি, উহাকে বলে বেসিক প্লেইন লেভেল। জ্ঞানের এই স্তরে আমরা যখন প্রবেশ করি, তখন আমাদের বডি এবং মাইন্ড রিল্যাক্স হয়ে যায়। এটা হল আমাদের ঘুমিয়ে যাওয়ার লেভেল বা স্তর । আমাদের মনের এটি একটি গভীর স্বাস্থ্যকর অবস্থান। মনের এই স্তরে সাধারন মানুষ ঘুমিয়ে গেলেও, বিজ্ঞানী, সুফি, দার্শনিকরা কিন্ত এই লেভেলে অবস্থান করেই সিদ্ধি লাভ করে। 

ধ্যানের মাধ্যমে একটা মানুষ যখন আলফা লেভেলে বিচরণ করে, তখন সে মানসিক প্রশান্তি লাভ করে। কারণ এই বাস্তব জগতের সাথে তখন তার কোন সম্পর্ক থাকে না। এখানকার ব্যথা বেদনা থেকে সে তখন নিজেকে মুক্ত করে ফেলতে পারে।  এজন্য ধ্যানের মাধ্যমে একটি প্রশান্তিময় জগতে বিচরণ করে আধ্যাত্মিক উন্নতি সাধন করাও সম্ভব হয়।

তাছাড়া এই লেভেলে দক্ষতা অর্জন করে খ্যাতিমান মেডিটেইটরগন মানব দেহের জটিল কঠিন রোগ-ব্যাধিও ভাল করে ফেলতে পারে।


Post a Comment

0 Comments