জীবনে কোন জিনিসগুলো আপনি কোনোভাবেই করতে চান না?

 

জীবনে কোন জিনিসগুলো আপনি কোনোভাবেই করতে চান না?

সৃষ্টির সেরা জীব মানুষ । যার আছে মান এবং হুস সেই সেই প্রকৃতপক্ষে মানুষ। এই মানুষ  চাইলেই যা কিছু করতে পারে না। তার আগে পিছে চিন্তা করে পা ফেলতে হয়। যারা মানুষের এই মাহাত্ম চিন্তা না করে চলে, তারা যেকোন অপকর্মে লিপ্ত হতে পারে।

জীবনে কোন জিনিসগুলো আপনি কোনোভাবেই করতে চান না? এই প্রশ্নের উত্তর যদিও অনেক বিস্তারিত, স্বল্প পরিসরে কিছু প্রয়োজনীয় কথা এখানে উল্লেখ করতে চাই। 

প্রথম কথা হল, যেকোন কাজ করার আগে মৃত্যুর কথাটি চিন্তা করেই কাজটি করা ভাল। তাহলে কোন জিনিসগুলি আপনি করতে চাননা তা পরিস্কার হয়ে যাবে।

তাহলে যে কাজ অবশ্যই করতে চাই না তা হল, 


১। অন্যের ক্ষাতি করাঃ


অন্য মানুষের ক্ষতি হয় এমন কাজ করতে চাই না। কারন , সেই ব্যক্তি মমিন না, যার জিহ্বা ও হাত থেকে অন্যেরা নিরাপদ না। 


২। পরিবারের ক্ষতি করাঃ


নিজের ও পরিবারের ক্ষতি হয় এম কাজ করতে চাই না। এর মধ্যে থাকতে পারে ; ধুমপান, মদ্যপান, পরকিয়া, হারাম রুজি, ব্যভিচার ইত্যাদি। এই কাজগুলি সরাসরি নিজের জীবন এবং পরিবারকে ধ্বংস করে দেয়।


৩। সমাজের ক্ষতি করাঃ


 দেশ ও সমাজের ক্ষতি হয় এমন কাজ করতে চাইনা। কেননা, প্রিয় দেশ ও দেশের মানুষ যদি ভাল থাকে তাহলেই আমরা ভাল থাকতে পারব।

ধরুন কোন জাহাজের দোতলায় সুপেয় পানি  আছে, এখন অলস লোকেরা যদি চিন্তা করে , পানিতো কাছেই আছে। চল জাহাজের তলা ফুটা করে পানি খেয়ে নেই। তাহলে পুরো জাহাজের যাত্রীতো মরবেই , যারা অপকর্ম করবে তারাও মরবে।

এজন্য দেশ ও সমাজের ক্ষতি হয় এরকম কাজতো করবই না অন্য কেউ করলে সাধ্যমত থামিয়ে দেওয়ার চেষ্টা করব এটাই আমাদের অঙ্গীকার হওয়া উচিৎ।


৪। প্রকৃতি জগৎ নষ্ট করাঃ


মহান আল্লাহ তায়ালার সৃষ্ট প্রকৃতি জগৎ নষ্ট হয় এমন কাজ করতে চাইনা। যেমন বৃক্ষ নিধন, খাল ও নদী ভরাট করা, পাহার কাটা, জীব-বৈচিত্র নষ্ট করা ইত্যাদি।


৫। সময় নষ্ট করাঃ


পরিশেষে বলতে চাই, আমাদের জীবনের সর্বশ্রেষ্ঠ সম্পদ হল সময়। মহান আল্লাহ রাব্বুল আলামিন সূরা আ-আসর এ সময়ের কসম করে বলেছেন , নিশ্চয়ই মানুষ ক্ষতির মধ্যে নিমজ্জিত।

জীবনের গভীর উপদেশ আমি নিজের জন্য এটাই নিয়েছি যে , এক সেকেন্ড সময়ও নষ্ট করা যাবে না। কেননা আসরের সময় খুবই সংক্ষিপ্ত। জীবন প্রতিনিয়ত বরফের মত গলে নিঃশেষ হয়ে যাচ্ছে। এই সময়কে কোন অবস্থায়ই আমি নষ্ট করতে চাই না।


Post a Comment

1 Comments