ব্লক পদ্ধতিতে কিভাবে কাপড়ে বিভিন্ন নকশা ফুটিয়ে তোলা যায়।


ব্লক  পদ্ধতিতে কাপড়ে রং করে বিভিন্ন নকশা ফুটিয়ে তোলা যায়।ছাপা একটি আলংকারিক শিল্প।বস্ত্রের জমিনকে আকর্ষণীয় করে তোলার জন্য ছাপা ব্যাবহার করা হয়।এই পদ্ধতিতে ঘরে বসেই কাপড় ছাপানো যায়। বিছানার চাদর,কুশন কভার,টেবিল ম্যাট, বালিশের কভার,শাড়ি, সালোয়ার কামিজ ইত্যাদি ব্লক পদ্ধতিতে ছাপানো হয়।

ব্লক ছাপা সবচেয়ে প্রাচীন পদ্ধতি। কাঠের মধ্যে খোদাই করে বিভিন্ন নকশা অংকন করে ব্লক তৈরি করা হয়।ব্লকে রং লাগিয়ে যে ছাপা করা হয় তাকে ব্লক প্রিন্ট বলে।বর্তমানে বাজারে ব্লক কিনতে পাওয়া যায়।এছাড়া পাতা,আলু,গাজর এসব দিয়েও নকশা করা যায়।

ব্লক করার পদ্ধতি:

ব্লক করার প্রয়োজনীয় উপকরন:

১. কাঠের টেবিল

২.কালার ট্রে

৩.ব্লক

৪.বিভিন্ন সাইজের ব্রাশ

৫.চট

৬.পুরানো কম্বল

৭.কাঠের স্ট্যান্ড

৮.ফোম ১/৪ বা ১০.৮ সে.মি. মোটা

টেবিল তৈরি:

টেবিলের ওপর ৩-৪ ভাজ চট বিছিয়ে চটের ওপর একটি পুরানো কম্বল বিছনো হয়। তার ওপর একটি মোটা মার্কিন কাপড় বিছিয়ে ব্লক করার জন্য টেবিল তৈরি করতে হবে।

কালার ট্রে:

একটি চারকোনা বাক্স। বাক্সটির তলায় কাঠের পরিবর্তে রেকসিন লাগানো থাকে।তার ওপড়ে পাতলা ফোম বিছিয়ে ব্লকের জন্য রং নিতে হবে।

একরামিন পেস্ট তৈরি:

১.একরামিন রং- ২/৩ চামচ;

২.বাইন্ডার - ২চা চামচ;

৩.ফিকচার- ১চা চামচ;

৪.এন কে -১ চা চামচ;

৫.পানি- পরিমানমতো।

ব্লক ছাপার পদ্ধতি:

১. যে কাপড়ে ব্লক করা হবে সে কাপড়টি ভালো করে ধুয়ে মাড় ফেলে নিতে হবে।

২.টেবিলের ওপর টানটান করে বিছাতে হবে।

৩.স্ট্যান্ড বা পাশে ছোট টেবিলের ওপর কালার ট্রে রাখতে হবে।

৪.কালার ট্রের মধ্যে ফোমের ওপর ব্রাশ বা চামচ দিয়ে রং মাখাতে হবে।

৫.ব্লকটি ফোমের ওপর রেখে চাপ দিয়ে ব্লকে রং ভরাতে হবে।

৬.এরপর রং ভরানো ব্লকটি কাপড়ের ওপর চাপ দিলে কাপড়ের ব্লক ছাপা হয়ে যাবে।

এভাবে ব্লক পদ্ধতিতে কাপড়ে বিভিন্ন নকশা ফুটিয়ে তোলা যায়।

Post a Comment

0 Comments